বঙ্গবন্ধু মানমন্দির’ ভাঙ্গাবাসী সৌভাগ্যবান-জেলা প্রশাসক

0
994

মামুনুর রশিদ  :: ফরিদপুরের নবাগত জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেছেন, কর্কট ক্রান্তি এবং ৯০ ডিগ্রি দ্রাঘিমার ছেদবিন্দু ভাঙ্গা উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে পড়েছে। ভাঙ্গায় বঙ্গবন্ধু মানমন্দির ও পর্যটন কেন্দ্র হওয়ার কারনেই বিশ্ব দরবারের কাছে এবং দেশের মধ্যে ভাঙ্গার জনগণ বেশী ভাগ্যবান।

তিনি আরও বলেন , বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সেখানে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানমন্দির’ স্থাপন করার জন্য একটা প্রকল্প প্রণয়নের কাজও শুরু হয়েছে। এটি নির্মিত হলে সারা বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ এবং আপনাদের ভাঙ্গার গুরুত্ব আরও বৃদ্ধি পাবে।

নবাগত জেলা প্রশাসক আজ দুপুরে ভাঙ্গা উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, রাজনীনিতীবীদ, সরকারি কর্মকর্তা, শিক্ষক ও সুশীল সমাজের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্ত্যেবে এসব কথা বলেন।

ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মূকতাদিরুল আহমেদের সভাপতিত্বে উপজেলা পরিষদ আম বাগান মাঠে মতবিনিময় সভার  আয়োজন করেন উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদ।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, ভাঙ্গা পৌরসভার মেয়র এএফ রেজা ফয়েজ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম হাবিবুর রহমান আল হাবিব, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রবিউল ইসলাম ও হিমাদ্রী খীসা, সহকারী কমিশনার (ভূমি)ভাঙ্গা।

এছাড়া অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, ভাঙ্গা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আকরামুজ্জামান রাজা, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল হক মিরু মুন্সী, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল বাশার, সাবেক কমান্ডার আলহাজ আমিনুল ইসলাম, ভাঙ্গা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা ইসাহাক, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, পারুলী আক্তার, ভাঙ্গা উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল আলম সম্রাট, ভাঙ্গা প্রেসক্লাবের একাংশের সভাপতি গোলাম কিব্রিয়া বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক রমজান শিকদার,

সাংবাদিক মাসুম অর রশিদ, ফরহাদ নান্নু, সোরোয়ার হোসেন, মনিরুজ্জামান, চান্দ্রা ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস হাওলাদার, আলগী ইউপি চেয়ারম্যান কাওসার ভুইয়া,আজিম নগর ইউপি চেয়ারম্যান মোতালেব মাতুব্বর, কালামৃধা ইউপি চেয়ারম্যান লিতু মাতুব্বর, হামিরদী ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাড, শামসুল আলম রাসেল, বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক, সরকারি কর্মকর্তা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি।

জেলা প্রশাসক অতুল সরকার আরও বলেন, সমাজের সকল স্তরের জনগণ যে যেখানে আছেন আমরা সবাই ফরিদপুরের উন্নয়নের জন্য একটি টিমওয়ার্ক হিসাবে কাজ করতে চাই। সেইক্ষেত্রে আলেম মাওলানা, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, রাজনীনিতীবীদ, সরকারি কর্মকর্তা, শিক্ষক ও সুশীল সমাজের সকলের গুরুত্ব অপরিসীম। আপনার এলাকায় মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, বাল্য বিয়ে, ইভটিজিং যে কোন অপরাধ নির্মূলে প্রসাসনকে সহ যোগিতা করতে এগিয়ে আসার আহ্বানও জানান।

এরআগে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার ভাঙ্গা উপজলা পরিষদ এলাকায় পৌঁছালে তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। পরে ভাঙ্গা উপজেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তর প্রধানদের সাথে এক সংক্ষিপ্ত সভায় তিনি মিলিত হন এবং কর্কট ক্রান্তি এবং ৯০ ডিগ্রি দ্রাঘিমার ছেদবিন্দু ভাঙ্গা উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলটি তিনি পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি সায়েন্স ফিকশন লেখক অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের ‘একটি স্বপ্ন’ শিরোনামে একটি নিবন্ধ লেখেন। সেখানে তিনি বলেন, পৃথিবীর চারটি উত্তর-দক্ষিণ রেখা এবং তিনটি পূর্ব-পশ্চিম রেখা, সব মিলিয়ে বারো জায়গায় ছেদ করেছে। এর দশটি বিন্দুই পড়েছে সাগরে-মহাসাগরে। শুধু একটি বিন্দু পড়েছে শুকনো মাটিতে, যেখানে মানুষ যেতে পারে। সেই বিন্দুটি পড়েছে বাংলাদেশে। এরপর থেকে দেশে এবং বিশেষ করে ফরিদপুরের মানুষ বঙ্গবন্ধু মানমন্দির বিষয়টি বুজতে পারায় এই নিয়ে সকল শ্রেনীর জনগণের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনা জেগে উঠে।

জানা গেছে, ভাঙ্গারদিয়ার ওই জমির মালিক বিজিবি সদস্য মোফাজ্জেল হোসেন বান্দরবানে চাকরিরত। এ প্রসঙ্গে তিনি গণ মাধ্যেমকর্মীদের বলেন, দেশের জন্য আমরা জীবন বাজি রেখে কাজ করি। কিন্তু বঙ্গবন্ধু মানমন্দির হবে এটা আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া। তিনি আরও বলেন একটি মহৎ কাজে দেশের জন্য এই সামান্য জমি দেওয়া আমার কাছে একটি স্বাভাবিক ব্যাপার।

ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুকতাদিরুল আহমেদ  বঙ্গবন্ধু মানমন্দির প্রসঙ্গে বলেন, ইতিমধ্যে একাধিকবার ভাঙ্গারদিয়া গ্রামের বিল ধোপাডাঙ্গা মৌজার ওই জমি ও এলাকা উপজেলা প্রশাসন সরেজমিনে বেশ কয়েকবার পরিদর্শন করেছেন। আজ আমাদের ফরিদপুরের নবাগত জেলা প্রশাসক স্যার ও সরেজমিনে পরিদর্শন করেন।

প্রসঙ্গত কারনে আরও উল্লেখ্য, ফরিদপুর-বরিশাল মহাসড়কের ভাঙ্গা উপজেলার পুখুরিয়া থেকে সদরপুর সড়কের দিকে যেতেই স্থানীয় বাইশরশী শিবসুন্দর একাডেমি সংলগ্ন নুরুল্লাগঞ্জমুখী রাস্তা ধরে ৩ কিলোমিটার এগোলে ভাঙ্গারদিয়া গ্রাম। সেখানকার বিল ধোপডাঙ্গা মৌজায় বারেক মাতুব্বর, ইকবাল মাতুব্বর, কুটি পাগলা, জাকির হোসেন, ইউসুফ মাতুব্বর, আজিজুল মাতুব্বর, শাহজাহান শেখ ও মোফাজ্জেল হোসেনের মোট প্রায় ৫ একর কৃষি জমিকে প্রাথমিকভাবে সম্ভাব্য এ প্রকল্পের জন্য নির্বাচন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

print

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here