ভাঙ্গায় তিনদিনের বৃক্ষ মেলার সমাপ্তি

0
283

ভাঙ্গা সংবাদদাতা :: কৃষিকাজে কৃষকদের সঠিক পরামর্শ, আধুনিক ও বৈজ্ঞানিক উপায়ে চাষাবাদ এবং সকল শ্রেনীর জনগণের মাঝে ফলদবৃক্ষ ও বাড়ির আঙ্গিনায় ওষুধি গাছ রোপণের আগ্রহী হয়ে উঠার লক্ষে “পরিকল্পিত ফল চাষ যোগাবে পুষ্টি সম্মত খাবার’ শ্লোগান সবার কাছে পৌঁছে দেয়ার মধ্যে দিয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের আমবাগানে শত শত দর্শকের উপস্থিতির মধ্যে দিয়ে এবারের তিনদিনের ফলদ বৃক্ষমেলা সম্পন্ন হয়েছে।

ভাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও বন বিভাগের আয়োজনে গত ১৭ আগস্ট র‍্যালী ও আলোচনা সভার শেষে লাল, নীল, হলুদ বেলুনের গুচ্ছ উড়িয়ে মেলার শুভ উদ্বোধন করেন ভাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম হাবিবুর রহমান আল হাবিব।

প্রতিদিন সকাল আটটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত মেলা সকলের জন্য উন্মুক্ত হওয়ায় শিশু কিশোর থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সের বৃক্ষপ্রেমীদের পদচারনায় ফলদবৃক্ষ মেলা হয়ে উঠেছিল মুখরিত। বিশেষ করে প্রতিবছরের মত উপজেলা কৃষি অফিসার সুদর্শন শিকদার, কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মোল্লা আল মামুন এবং সহকারী কৃষি অফিসারদের এবং অফিসের অন্য সকলের নিরলস পরিশ্রমের ফসল হিসাবে ফলদবৃক্ষ মেলা একটি আনুষ্ঠানিকভাবে সাধারণ জনগণের কাছে তারা পৌঁছে দিয়ে থাকেন। মেলার দর্শকদের মেলার প্রতি আকৃষ্ট করতে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে নার্সারি মালিক ও কৃষি অভিজ্ঞ কৃষকদের ফলানো বিভিন্ন প্রজাতির চারাগাছের সমাহার মেলায় এনে দর্শকদের চাহিদা পূরণের কাজে সচেষ্ট থাকেন। আর সেখানেই উঠে আসে ফলদবৃক্ষ মেলার বিশেষ স্বার্থকতা এমনটিই মনে করেন ভাঙ্গা উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর।

মেলার প্রধান আয়োজক হিসাবে ভাঙ্গা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুদর্শন শিকদার জানান, স্থানীয় কৃষকদের কৃষি কাজে বিশেষ সচেতনতা গড়ে তোলার লক্ষ্যে সরকারীভাবে প্রতি বছরের ন্যায় ফলদ বৃক্ষমেলার আয়োজন করা হয়। সেই সাথে মেলার দর্শকদের ফলজ ও ওষুধি গাছ রোপণের আগ্রহী করে তোলার জন্য কৃষি অফিস কৃষিবিষয়ক একটি পরামর্শ স্টলের মাধ্যেমে এবারের মেলায় তারা সেবাদান করেন। কৃষি অফিস থেকে এবারের মেলায় সাড়ে ৭ হাজার বৃক্ষ চারা তার জনগণের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করেছেন। ভাসমান বীজতলা, আদর্শ বাড়ি, ছাদকৃষিসহ বিভিন্ন উপকরনের বাস্তবচিত্র ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছি। এবারের মেলায় ছাত্র, শিক্ষক, কৃষকসহ মেলায় আগত বিভিন্ন দর্শকের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টার ত্রুটি ছিল না। আগামী দিনের ফলদবৃক্ষ মেলায় কৃষক এবং মেলার দর্শকদের কথা মাথায় নিয়ে নতুন কিছু উপস্থাপনের সকল চেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে নিজের অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।

সমাপনী অনুষ্ঠানে ফলদ ও ওষুধি গাছ রোপণের উপকারিতা প্রসঙ্গ’ বিতর্ক প্রতিযোগিতার পাশাপাশি কৃষি কাজে উদবুদ্ধকরনের ভিডিওচিত্র প্রদর্শন, কবিতা আবৃত্তি ও কুইচ প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ গ্রহণ করে ফলদ বৃক্ষমেলায় উপস্থিত দর্শকদের মোহিত করে তোলেন। ভাঙ্গা সহকারী কমিশনার ভূমি) হিমাদ্রী খিসা সমাপনি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন এবং মেলায় অংশগ্রহণকারী নার্সারি মালিকদের শিক্ষার্থীদের নিয়ে কবিতা, চিত্রাঅঙ্কন এবং বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।

উপজেলা বন বিভাগ থেকে জানা গেছে, বন বিভাগ প্রতিবছরের মত এবারও মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক সংগঠনের জন্য বীণা মূল্যে ১০ হাজার ফলজ ও ওষুধি বৃক্ষ বিতরণ করেছে। এছাড়া মেলায় ১৫টি নার্সারি থেকে বৃক্ষপ্রেমিকেরা নিজেদের পছন্দের তালিকায় বিভিন্ন জাতের গাছের চারা ক্রয় করতে দেখা গেছে। এরমধ্যে কমলা ফুলের গাছের পাশাপাশি লেবুর ও মাল্টা গাছের ফলের চারা সবচেয়ে বেশী বিক্রয় হয়েছে। ভাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও বন বিভাগের আয়োজনের ফলদ বৃক্ষমেলার মাধ্যেমে আগামী দিনে ভাঙ্গায় সবুজের সমাহার ঘটবে এমনটি প্রত্যাশা এলাকার বৃক্ষপ্রেমীদের।

print

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here