নববধুর বয়স ১৫ বছর !

0
99

সংবাদদাতা :: কুয়েত প্রবাসী যুবক জাহিদ মোল্লা। বিয়ে করবে বলে দেশে ফিরেছেন। পরিবার থেকে কন্যা পক্ষের সাথে বিয়ের কথা চূড়ান্ত হওয়ায় নববধুকে ঘরে নিয়ে আসার পালাও শেষ। পালা চলছিল বৌভাতের! বেশ ঘনঘটা করে উৎসব চলছিল প্রবাসীর বাড়িতে।

কিন্তু কন্যার বয়স কম হওয়ায় প্রবাসী পরিবার কিছুটা গোপনীয়তা রক্ষা করে প্রতিবেশীদের নিমন্ত্রণও করেন। অর্থাৎ কাছের লোকগুলকে জানানো হয়! কেউ জিজ্ঞেস করলে বলবেন! বিয়ে নয় সুন্নতে খৎনার অনুষ্ঠান চলছে। কিন্তু বিধিবাম! প্রবাসী যুবকের কৌশল শেষ পর্যন্ত রক্ষা হল না?

ভাঙ্গা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) শুক্রবার সরকারী একটি কাজে ভাঙ্গা উপজেলার হামিরদী ইউনিয়নের মাধবপুর গ্রামের ওই প্রবাসী যুবকের বাড়ির পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে অনেকেই তাকে জানান, একজন প্রবাসী যুবক ১৫ বছরের নীচের বয়সী এক কন্যাকে বিয়ে করছেন এবং কন্যা পক্ষের লোকজন ছেলে প্রবাসী হওয়ায় মেয়েকে বিয়ে দিচ্ছেন।

গ্রামবাসীর সেই অভিযোগ এবার ক্ষতিয়ে দেখার পালা শুরু করেন বাল্য বিয়ে বিরোধী আইনের সেবক ভাঙ্গা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিমাদ্রী খিসা।

তিনি পথিমধ্যে নিমন্ত্রণ খেতে আসা অনেকের কাছে জিজ্ঞেস করেন? তারা দলবেঁধে কোন অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন? উত্তরে তদের কেউ জানান, বিয়ে খেতে কেউবা বলেন, সুন্নতে খৎনার অনুষ্ঠানে। দুই ধরণের বক্তব্যের সূত্রতায় কিছুটা সন্দেহ সৃষ্টি হয় ভাঙ্গা প্রশাসনের আইনের সেবক হিমাদ্রী খিসা ও তার সঙ্গীয় সদস্যদের কাছে। তারা প্রবাসী যুবকের বাড়িতে প্রবেশ করেন। তাদের প্রবেশ করতে দেখে বাড়ির লোকজন ভীতগ্রস্থ হয়ে নবব্ধুকে ঘরের ভিতরে লুকিয়ে রাখেন। কেউ আবার বিয়ের বাসর ঘরের সাজসরঞ্জাম ছিঁড়ে ফেলতে থাকেন। এককথায় প্রবাসীর বাড়ির লোকজন নিসচুপ বনে চলে যায়।

ভূমি অফিসের একজন কর্মচারী প্রবাসীর স্বজনদের সাহায্য নিয়ে ঘরের ভিতরে লুকিয়ে রাখা নবব্ধুকে উপস্থিত আমন্ত্রিত অতিথিদের সামনে নিয়ে আসেন। এরপর ভাঙ্গা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মেয়ের (নববধুর) বয়স কত হতে পারে বলে জনতার কাছে জিজ্ঞেস করেন? উপস্থিত গ্রামবাসী লজ্জায় মুখ লুকিয়ে রাখেন। অনেকেই বলেন, বিয়ের বয়স হয় নি। কেউ বলেন বাল্য বিয়ের অপরাধ। কেউ বলেন, প্রবাসী ছেলের অর্থের লালসায় পরে অল্প বয়সের মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন তার পরিবার। অর্থাৎ উপস্থিত জনতার ভাস্যমতে ১৫তে পড়েছে নববধুর বয়স। যা দেশের প্রচলিত আইন বাল্য বিয়ের অপরাধ।

অবশেষে ভাঙ্গা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিমাদ্রী খিসা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। প্রবাসী যুবক জাহিদ মোল্লাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী বিজ্ঞ আদালত। প্রবাসী যুবক জাহিদ মোল্লা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান বলে জানান এলাকাবাসী।

এ প্রসঙ্গে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী ভাঙ্গা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিমাদ্রী খিসা এফবি ওয়ালে একটি পোস্ট দিয়েছেন। আমরা লিড-নিউজ পাঠকদের জন্য তা তুলে ধরছি———

AC Land Bhanga Faridpur is with Himadri Khisa.
10 hrs ·
আজকের মোবাইল কোর্ট:
ভূমি নিয়ে সমস্যা সংক্রান্ত তদন্ত করে মাধবপুর হয়ে ফিরছিলাম।ফেরার পথে বিয়ে বাড়ি চোখে পড়ল।রাস্তার লোকজনকে জিজ্ঞেস করলাম কোথায় যাচ্ছেন।কেউ বলল বিয়ে খেতে আবার কেউ বলল মুসলমানির অনুষ্ঠানে। এরমধ্যে একজন শুধু বলল মুসলমানির অনুষ্ঠান। সন্দেহবশত বাড়িতে ঢুকলাম।আমাকে দেখে একজন মহিলা দৌড়ে এক রুমে ঢুকে গেলেন।তার পিছনে দৌড়ে গেলাম।দেখলাম মহিলা সাজানো বাসর ঘর তছনছ করে দিচ্ছে,বিয়ের সাজ সরঞ্জাম সরাচ্ছেন।যেহেতু ঐ পরিবারের কাউকে চিনিনা।এত মানুষের ভিড়ে কেউ স্বীকার করছেন না কে এই বাড়ির সদস্য।সবাই বলে বিয়ে খেতে এসেছি।অনেক জোরাজোরি করার পরেও পরিবারের কাউকে বের করা যাচ্ছিল না।সেই মুহুর্তে আমার এক স্টাফ বাড়ির গোয়ালঘর থেকে নববধুকে বের করে নিয়ে আসলেন।মেয়ের বয়স মাত্র ১৫ বছর।বর কুয়েত প্রবাসী।বয়স দ্বিগুনেরও বেশি।একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান।মোবাইল কোর্টে ৫০০০০টাকা অর্থদণ্ড প্রদানসহ মুচলেকা নেয়া হল। বাল্যবিবাহ আইনটি এত কঠোর হবার পরেও অগোচরে হয়ে যাচ্ছে অহরহ বাল্যবিবাহ।

print

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here