• মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১১:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
মোবাইলে সরাসরি রেমিট্যান্স পাঠাতে পারবেন প্রবাসীরা ১০ টাকার টিকিট কেটে চোখ দেখালেন প্রধানমন্ত্রী ভাঙ্গায় নারীর সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন ভাবনা সেমিনার অনুষ্ঠিত যুক্তরাষ্ট্রে ৩ ফুটবলারকে গুলি করে হত্যা ভাঙ্গায় আরও ৪০টি ভূমিহীন পরিবারের মাঝে ঘর বিতরণ করেছে উপজেলা প্রশাসন জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের সদস্য হলো বাংলাদেশ ভাঙ্গা মাদানী নগর কবর স্থান পরিচালনার নতুন কমিটি গঠন অধ্যক্ষ আবু ইউসুফ মৃধা ভাঙ্গায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান নির্বাচিত নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, পুলিশকে দুষছেন বিএনপির আমান ভাঙ্গায় শান্তিপূর্ন পরিবেশে এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর অভিযোগ : প্রধান নির্বাচন কমিশনার পক্ষপাতিত্ব করছেন

Reporter Name / ৭৯৫ Time View
Update : রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

ফরিদপুর সংবাদদাতা  ::

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার সাথে ফরিদপুর-৩ আসনের বিএনপির প্রার্থী চৌধুরী কামাল ইব্নে ইউসুফের অন্য রকম আঁতাত রয়েছে, সিইসি পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণ করছেন বলে এক নির্বাচনী জনসভায় বক্তৃতাকালে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ও ফরিদপুর-৩ আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

আজ রবিবার দুপুরে ফরিদপুর শহরের গোয়ালচামট এলাকার সারদা সুন্দরী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত এক নির্বাচনী সভায় এ অভিযোগ করেন। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মঞ্জুরুল হকের সভাপতিত্বে নির্বাচনী জনসভা অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি বলেন, কামাল ইউসুফ যখন মন্ত্রী ছিলেন কে এম নূরুল হুদা তখন ফরিদপুরের ডিসি ছিলেন। তাই তাদের সাথে যোগাযোগ রয়েছে। কামাল ইউসুফ তার সাথে চাইলেই যোগাযোগ করতে পারেন। কিন্তু আমরা বারবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি আমার ফোন ধরেনও না আবার ফিরতি কলও করেন না। সিইসি এভাবে আমাদের সাথে পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণ করতে পারেন না।

ফরিদপুর-৩ (সদর) আসনের আওয়ামী লীগের এই প্রার্থী অভিযোগ করে বলেন, নির্বাচনী প্রচারনার দ্বিতীয় দিনে আমার কর্মী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতা ইউসুফকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। আমি নির্বাচন কমিশনের নালিশ করব কি উল্টো আমাদের বিরুদ্ধে তারা নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করছেন।

বিএনপি নাকি নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণা চালাতে পারছে না। সে কিভাবে নির্বাচনে প্রচারণা চালাবে। সে দায়িত্ব তো আওয়ামী লীগের নয়। আমরা তো তাদের লোকজন দিয়ে প্রচারণা চালিয়ে দিতে পারব না। তিনি অতিথি পাখির মতো হয়ে ১০ বছর পর এলাকায় ভোট চাইতে এসেছেন। জনগণ তার সাথে নেই সে কিভাবে একা একা প্রচারণা চালাবে।

সভায় অন্যদের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ঝর্ণা হাসান, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার নাজমুল ইসলাম লেভী, চৌধুরী বরকত ইব্নে সালাম প্রমুখ বক্তব্য দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ