• মঙ্গলবার, ০৬ জুন ২০২৩, ০৪:০৭ অপরাহ্ন

ভাঙ্গায় নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতাস্থলে মানবাধিকার কমিশন সচিব

Reporter Name / ১২৮৯ Time View
Update : শুক্রবার, ৪ জানুয়ারী, ২০১৯

ভাঙ্গা সংবাদদাতা ::

ফরিদপুর-৪ (ভাঙ্গা, চরভদ্রাসন ও সদরপুর) আসনে গত কয়েকদিন বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সনের সমর্থক ও নৌকার পরাজিত প্রার্থী কাজী জাফর উল্লাহর সমর্থকদের মধ্যে হামলা-পাল্টাহামলার ঘটনা ঘটে।

ভাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে গত বুধবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করে কাজী জাফর উল্লাহ অভিযোগ করেন তার পক্ষের দলীয় নেতাকর্মীদের ৯৩টি বাড়ি ঘর ভাংচুর করা হয়েছে।

আর এসব ঘটনায় সৃষ্ট পরিস্থিতি সরেজমিনে দেখতে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সচিব হিরন্ময় বাড়ৈ বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত ভাঙ্গা উপজেলার কাউলিবেড়া ইউনিয়নের ঘাটরা গ্রাম, নাসিরাবাদা ইউনিয়নের ভদ্রকান্দা ও কালামৃধা ইউনিয়নের কালামৃধা গ্রাম পরিদর্শন করেন।

এ সময় তার সঙ্গে ফরিদপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. জাকির হোসেন খাঁন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আসলাম মোল্লা, ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুকতাদিরুল আহমেদ ও সহকারী পুলিশ সুপার (ভাঙ্গা সার্কেল) রবিউল ইসলাম, ভাঙ্গা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফছানা কাওসারসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য নির্বাচন ঘোষণার ফলাফল রাত থেকে ফরিদপুর-৪ আসনে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের সঙ্গে পরাজিত নৌকার প্রার্থীর সমর্থকদের সংর্ঘষ অব্যাহত রয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে বাড়িঘর ভাঙচুর, হামলা ও লুটপাট চালানো হয়েছে।

সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভয়ে বাড়ি ফিরতে পারছেন না উভয়পক্ষের অনেকে।

ফের কখন আবার হামলা হয় এমন আতঙ্কে সময় পার করছেন অসহায় পরিবারগুলো। আর এসব হামলার ঘটনায় এ পর্যন্ত দুপক্ষ থেকেই বেশ কয়েকটি মামলা করা হয়েছে থানায়।

আওয়ামীলীগের অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিজয়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সনের মুখপাত্র ভাঙ্গা উপজেলার চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন পাল্টা অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, এই পর্যন্ত তাদের নেতাকর্মীদের ৯০টি বাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে। তিনি এর বিচারও দাবী করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ