• বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
চীনের সাবেক প্রেসিডেন্ট জেমিনের মৃত্যুতে শোক প্রধানমন্ত্রীর মোবাইলে সরাসরি রেমিট্যান্স পাঠাতে পারবেন প্রবাসীরা ১০ টাকার টিকিট কেটে চোখ দেখালেন প্রধানমন্ত্রী ভাঙ্গায় নারীর সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়ন ভাবনা সেমিনার অনুষ্ঠিত যুক্তরাষ্ট্রে ৩ ফুটবলারকে গুলি করে হত্যা ভাঙ্গায় আরও ৪০টি ভূমিহীন পরিবারের মাঝে ঘর বিতরণ করেছে উপজেলা প্রশাসন জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের সদস্য হলো বাংলাদেশ ভাঙ্গা মাদানী নগর কবর স্থান পরিচালনার নতুন কমিটি গঠন অধ্যক্ষ আবু ইউসুফ মৃধা ভাঙ্গায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান নির্বাচিত নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, পুলিশকে দুষছেন বিএনপির আমান

ঠাকুরগাঁওয়ে গুলিতে ৩ জন নিহতের ঘটনায় বিজিবির মামলা

Reporter Name / ৮৬৬ Time View
Update : শুক্রবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯

ডেস্ক প্রতিবেদক ::

ঠাকুরগাঁওয়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সঙ্গে গ্রামবাসীর সংঘর্ষে তিনজন নিহতের ঘটনায় ১৯ জনের নাম উল্লেখ্য করে অজ্ঞাত দুই শতাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। আজ শুক্রবার বিজিবি বেতনা বর্ডার আউট পোস্টের (বিওপি) পক্ষ থেকে হরিপুর থানায় এই মামলা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুজ্জামান।

মামলার বিষয়ে ঠাকুগাঁও ৫০ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মোহা. মাসুদ জানান, মঙ্গলবার বহরমপুর গ্রামে বিজিবির ওপর হামলার ঘটনায় বেতনা বিওপির নায়েব সুবেদার জহুরুল ইসলাম বাদী হয়ে দুই শতাধিক হামলকারীর বিরুদ্ধে মামলা করেন।

হরিপুর থানার ওসি আমিরুজ্জামান মামলার কথা স্বীকার করে বলেন, মঙ্গলবার বহরমপুর গ্রামে বিজিবির জব্দ করা গরুকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় বিজিবি-গ্রামবাসীর সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিতে তিনজন নিহত ও বিজিবি সদস্যসহ প্রায় ২০ জন আহত হন।

তিনি জানান, গরু পাচার ও ছিনতাইয়ের অভিযোগ এনে বিজিবির পক্ষ থেকে মামলায় আসামি করা হয়েছে ওইদিন গুলিতে নিহত শিক্ষক নবাব আলী ও সাদেকুল ইসলামসহ দুই শতাধিক মানুষকে।

উল্লেখ্য, চোরাই গরু আনা হয়েছে সন্দেহে বিজিবি সদস্যরা গত মঙ্গলবার হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের বহরমপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে কয়েকটি গরু জব্দ করে ট্রলিতে তুললে গ্রামবাসী বাঁধা দেয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এক পর্যায়ে বিজিবি সদস্যরা গুলি চালালে তিনজন নিহত হন, আহত হন বিজিবি সদস্যসহ অন্তত ২০ জন।

নিহতরা হলেন- রুহিয়া গ্রামে নজরুল ইসলামের ছেলে নবাব আলী, জহিরুলের ছেলে সাদেক মিয়া এবং বহরমপুর গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে জয়নুল।

বিজিবির দাবি, জব্দ করা গরু বিওপিতে নেওয়ার সময় চোরা কারবারিরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। আত্মরক্ষার্থে বিজিবি সদস্যরা গুলি চালাতে বাধ্য হন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও সংবাদ