• রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ০২:৪৭ অপরাহ্ন

ভাঙ্গায় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও সাংবাদিক নেতার বাড়িতে হামলা’ দুই বাড়িতে আগুন

Reporter Name / ১০৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২২ মার্চ, ২০২২

লিড-নিউজ দক্ষিণাঞ্চল অফিস :: ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার আলগী ইউনিয়নের বালিয়াচরা গ্রামে আজ মঙ্গলবার (২২ মার্চ) সকালে ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আনোয়ার হোসেন ও ভাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নেতা এটিএম ফরহাদ নান্নুর বাড়িতে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা’ ও একই গ্রামের অপর তিনটি বাড়িতে আগুন, ঘরের মালামাল ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ সময় প্রায় দুই বিঘা পেয়াজের জমির ফসল ও বিভিন্ন সবজি ক্ষেতের ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করা হয়েছে। একটি ক্রিকেট খেলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোনাখোলা ও বালিয়াচরা দুটি গ্রামের মধ্যে বিবদমান সংঘাতের সৃষ্টি থেকে এই সংঘাতের ঘটনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। দুটি গ্রামে থম থমে পরিস্থিতি বিরাজ করায় পুনঃ সংঘাতের আশংকায় ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, বালিয়া গ্রামের মিরহাজ ও হাসিবুলসহ কয়েক যুবককে কয়েকদিন আগে ভাঙ্গায় ক্রিকেট খেলার জয়-পরাজয় ঘটনা কেন্দ্র করে সোনাখোলা গ্রামের লোকজন হামলা চালিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় দুটি গ্রামের মাঝে বেশ উত্তেজনাকর পরিস্থিতির আবির্ভাব হওয়ায় স্থানীয় সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা বিষয়টি দেখভাল করে সমাধানে এগিয়ে আসে। দুদিন আগে বিষয়টি মীমাংসার পথে এগিয়ে গেলেও দুটি গ্রামের স্বার্থনেস্বী মহলের কারণে ঘটনাটি অমীমাংসা রয়ে যায়। এদিকে ঘটনাটি অমীমাংসার সূত্রতায় বিবদমান দুটি গ্রামের মধ্যে বইতে থাকে চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতির।

বিষয়তি ভাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের নজরে দেওয়া হলেও প্রশাসনের বিশেষ নজরদারী না থাকায় মঙ্গলবার ভোরে সোনাখোলা ও বালিয়া গ্রামের শত শত গ্রামবাসী দেশীয় অস্ত্র ঢাল, সড়কি, রাম দা, বল্লাম ও লাঠি সোঠা নিয়ে ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়া চালায়। একটি পর্যায়ে পরিস্থিতি ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়ার মাঝে সীমাবদ্ধ থাকলেও সোনা খোলা গ্রামের লোকজন তাদের পার্শ্ববর্তী বেশ কয়েকটি গ্রামের লোকজনকে ভাড়া করে এনে বালিয়া গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে ঢুঁকে ব্যাপক তাণ্ডব চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকের ভাষ্যমতে প্রায় চার ঘণ্টাব্যাপী গ্রামের বিভিন্ন বাড়িতে তাণ্ডব চলতে থাকে। এসময় নারী পুরুষ, শিশুরা নিজ্জেদের ঘরেতে অবরুদ্ধ হওয়ার পাশাপাশি শত শত লোকের চিৎকার শোরগোল আর উল্লাসে এসময় গোটা এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পরে ঘরে ঘরে। খবর পেয়ে স্থানীয় থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছালেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে তারা হিমশিম খেয়ে উঠে।

সংঘাতের একটি পর্যায়ে তিনটি বাড়িতে (পাঠ কাঁঠির ঘরে) অগ্নিসংযোগ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও সাংবাদিক নেতার বাড়িতে, পুলিশ সদস্য আকাশ মুন্সী, ও হান্নানের বাড়িতে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এসময় জালাল (৫৫), খোকন মুন্সী (৩৫) বোরাক (৪০), রুবেল, সালেহা, রমজান শেখ, জাকির হোসেন, বিল্লাল, ওমর আলীসহ আরও বেশ কয়েকজন গুরুত্বর আহত হন। আহতদের ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে হামলাকারীরা কাওসার মুন্সী ও মিজানুরের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করার পাশাপাশি ঘরের মালামাল লুটের অভিযোগ এনে একজন ছাত্রী কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান, হামলাকারীরা তার ঘরের মালামাল ভাংচুর ও লুটপাটের সময় তার এসএসসি ও এইচএসসি পরিক্ষার সনদপত্র ও বাড়ির দলিল ছিনিয়ে নিয়ে গেছে।

আলগী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আনোয়ার হোসেনের ছোট ভাই ভাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নেতা এটিএম ফরহাদ নান্নু জানান, সোনাখোলা ও বালিয়া গ্রামের মাঝে ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে বেশ উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে বিষয়টি আমি (তিনি) উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জকে জানিয়েছিলাম। কিন্ত পুলিশ বিষয়টি আংশিক গুরুত্ব দেয়ায় আজ সকালে দুটি গ্রামের লোকজন সকালে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে একপক্ষ অন্যে পক্ষের উপর হামলা করতে নিজেদের লোকজন নিয়ে উদাম মাঠে নেমে পরে। এসময় দুটি গ্রুপের লোকজনের মধ্যে প্রায় দুঘণ্টা চলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। উত্তেজনা পরিস্থিতিতে আমার ভাই ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের বাড়িতে হামলা করতে এগিয়ে আসলেও আমরা পুলিশের কাছ থেকে কোন ধরনের সহযোগিতা না পাওয়ায় বিক্ষুদ্ধ গ্রামবাসী আমাদের বাড়িতে হামলা ও ভাংচুরসহ মাঠের প্রায় দেরবিঘা পেয়াজের ফলন তুলে নিয়ে যায় এবং অন্যান্য জমির সবজি গাছ কেটে গমের ক্ষেতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

ভাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম রেজা সাংবাদিকদের বলেন, সংঘর্ষের খবর পাওয়া মাত্র পুলিশ দ্রুত ঘটনা স্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি দেখে যথাযথ ভূমিকা পালন করার পাশাপাশি জেলা সদর থেকে পুলিশ এনে ভাঙ্গা থানার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফাহিমা কাদের চৌধুরী ঘটনা স্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে সক্ষম হন। থানায় অভিযোগ আসলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও সংবাদ